Cellphone

স্মার্টফোন বা Cellphone কিনতে চাচ্ছেন? চাচ্ছেন আপনার এক্সপেক্টশনের সাথে খাপেখাপ মিলবে এমন কোন স্মার্টফোন সিলেক্ট করতে? তাহলে আমি যে বিষয়গুলো নিয়ে এখন কথা বলবো তা আপনার উপকারে আসবে।স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে বিভিন্নজনের ডিমান্ড বিভিন্নরকম হয়ে থাকে। কেও চায় ভালো ক্যামেরার একটি ফোন। কারো কারোর আবার পছন্দ প্রসেসিংএর ক্ষেত্ত্রে দ্রুতগতি সম্পন্ন একটি ফোন। আবার অনেকে চায় ভালো ব্যাটারী পারফরমেন্স দিবে এমন একটি ফোন।

সে যাই হোক। সেলফোনের বাজারে ক্রেতাদের চাহিদা বিবেচনায় রেখেই কোম্পানিগুলো ফোন বাজারে আনছে। স্মার্টফোন কেনার সময় আমাদের অনেক বিষয় যাচাই করতে হয়। হ্যাঁ বন্ধুরা, স্মার্টফোন কেনার আগে কিছু বিষয় সবার যাচাই করা উচিত।কোন কোন বিষয়গুলো যাচাই করবো সেইটা জেনে রাখা দরকার। চিন্তা করার কিছু নেই। আমার এই লিখাটি পড়লেই স্বচ্ছ ধারণা পেয়ে যাবেন। জানতে পারবেন কি কি বিষয় খেয়াল করা উচিত পছন্দের ফোনটি সিলেক্ট করতে।

Cellphone টির অপারেটিং সিস্টেম

অপারেটিং সিস্টেমের উপর ডিপেন্ড করে আজকাল ফোন সিলেক্ট করে থাকা হয়। তিন ধরনের অপারেটিং সিস্টেমে বাংলাদেশের বাজারে স্মার্টফোন বা Cellphone পাবেন আপনি। এন্ড্রোয়েড,আইওএস আর উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম। এদের মধ্যে এন্ড্রোয়েড অপারেটিং সিস্টেম এর চাহিদা সবচেয়ে বেশি। তারপর পরেই আছে আইওএস ভার্সনের স্মার্টফোনগুলো।

উইন্ডোজ  অপারেটিং সিস্টেম আগে মাইক্রোসফট এর ফোনে দেখতে পাওয়া গেলেও। বর্তমানে কয়েকটি চায়না ফোন ছাড়া এখন উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম তেমন দেখতে পাওয়া যায় না।

বর্তমানে এন্ড্রোয়েড প্রসেসরের ফোনে বাজার টইটম্বুর। মিড বাজেট ফোনেই পায়ে যাবেন দ্রুত গতি সম্পন্ন এন্ড্রোয়েড প্রসেসর।

RAM

RAM সম্পর্কে জানি না এমন খুব কমই আছি।আপনার ফোনটিতে যদি RAM এর দিক দিয়ে  দুর্বল হয় তবে সমস্যায় পড়তে পারেন। কারণ ইন্টারনেট ব্রাউজিং এবং গতির ক্ষেত্রে ভালো ফল পাবেন না। আপনি যদি শধু কথা বলার জন্য ফোন কিনতে চাচ্ছেন তবে RAM বেশি হবার দরকার নেই। কিন্তু হ্যাঁ ,যদি গেমিং লাভার হন তবে অবশ্যই ফোনের RAM টি হতে হবে ৩-৪ জিবি। বাজারে বর্তমানে ৬-৮ জিবি RAM বিশিষ্ট ফোনও পেয়ে যাবেন।

ডিসপ্লে

আমরা সবাই স্মার্টফোনে বড় মাপের একটি ডিসপ্লে প্রেফার করি। কিন্তু ডিসপ্লেটি বড় হলেই কি ভালো ডিসপ্লে বলা চলে? মোটেও তা নয়। কারণ ভালো কালার ও ভালো ভিউইং এঙ্গেলের উপর ডিপেন্ড করে একটি ডিসপ্লেকে ভালো মন্দের বিষয়গুলো। সুপার এমোলেড ডিসপ্লে হলো বর্তমানে সব চেয়ে ভালো মানের ডিসপ্লে।বিশেষ করে স্যামসাং ফোনে আই ডিসপ্লেগুলো বেশি চোখে পরে। আর হ্যাঁ, মিড বাজেটের ফোনেও সুপার এমোলেড ডিসপ্লে দিচ্ছে স্যামসাং।

এলইডি ডিসপ্লে ও ভিএফডি ডিসপ্লে যুক্ত লো বাজেটের ফোনও পেয়ে যাবেন। লো বাজেটে এই ডিসপ্লেগুলোও বেশ ভালোই বলা চলে।

ক্যামেরা

স্মার্টফোন কিনবেন আর ক্যামেরা সেকশন নিয়ে মাথা ঘামাবেন না এইটা কি সম্ভব? কেনার আগে যাচাই করতে হবে স্মার্টফোনটির ক্যামেরা সম্পর্কেও। এখনকার ফোনে ৫ মেগাপিক্সসেল থেকে ২০ মেগাপিক্সসেলের ক্যামেরা দেখতে পাওয়া যায়। তাই ট্রেন্ডের সাথে আপ টু ডেট থাকতে হলে বাছাই করতে হবে ভালো মানের একটি ক্যামেরা ফোন। সেলফোনের ইমেজ প্রসেসরে,এপাচার, লেন্সের উপর ডিপেন্ড করে একটি ভালো ক্যামেরা ফোনের মান।

ব্যাটারী

স্মার্টফোনের জন্য ব্যাটারী খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ প্রসেসর,র্যাম,ডিসপ্লে অব্যক্ত ক্যামেরা পারফরমেন্স ব্যাটারী এর উপর নির্ভরশীল। স্মার্টফোনের ব্যাটারী নিয়ে চিন্তা করার কোনো কারন নেই। বাংলাদেশের মোবাইল বাজার গুলো তে পাচ্ছেন ২০০০ থেকে ৫০০০ এমএএইচ শক্তিসম্পন্ন ব্যাটারিযুক্ত স্মার্টফোন। সুতরাং নিজের ব্যবহারের ধরন অনুযায়ী এবং ব্যাটারী পারফরম্যান্সের উপর ডিপেন্ড করে ফোন সিলেক্ট করা উচিত সবার।

তো ফোন কিনতে হলে যা যা যাচাই করতে হবে তা আমরা বেশ ভালোভাবেই জানলাম। নতুন Cellphone কেনার সময় অবশ্যই সবাই এই বিষয়গুলো মাথায় রাখবেন। আশা করি বিষয়গুলো বুঝতে পেরেছেন। আপনার নতুন ফোনটি আপনার এক্সপেক্টশনস ফুলফিল করুক। তো আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। ভালো থাকুন,সুস্থ থাকুন সবাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here