কিভাবে

কমদামে যারা ভালো একটি স্মার্টফোন কিনতে চাচ্ছেন তাদের জন্য ভালো একটি ব্র্যান্ড হলো শাওমি । চীনা কোম্পানি শাওমি তাদের নিত্যনতুন স্মার্টফোন বাজারে এনে চমক লাগাচ্ছে প্রতিনিয়ত।কিন্তু অনেকেই শাওমি ফোন কিনতে কিছুটা অনিশ্চয়তা অনুভব করেন। কারণ একটাই, অনেকেই  বুঝে উঠতে পারেন না আসল শাওমি ফোন কিভাবে চেনা যায় ।

তবে বন্ধুরা ,এখন আর ভয় পাবার কোনো কারণ নেই। আমি জানিয়ে দেব আপনাদের এমন কিছু টেকনিক যার মাধ্যমে খুব সহজে আপনারা নিজেরাই জেনে নিতে পারবেন আসল শাওমি ফোন কোনটি।

তবে আর দেরি কেন ? চলুন জেনে নেই আসল শাওমি ফোন চেনার উপায় গুলো ।

Mi Verification App Method দিয়ে কিভাবে চিনবো

বর্তমান বাজারে সবার পছন্দের একটি স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হচ্ছে শাওমি। বাজারে সবচেয়ে বেশি যে প্রোডাক্ট প্রাধান্য পায় সেই প্রোডাক্টটির নকল বা ক্লোন বের হওয়াটাই স্বাভাবিক ব্যাপার। শাওমির ক্ষেত্রেও ঠিক সেইটাই হচ্ছে।এখন কথা হলো আসল এবং নকল শাওমি কিভাবে চিনবেন? এক্ষেত্রে আপনার কাজে আসতে পারে Mi Verification App Method টি।

প্রথমে আপনাকে Mi Varification App টি ডাউনলোড করে নিতে নিতে হবে। তারপর App টি ইনস্টল করে নিবেন। ল্যাপটপ বা পিসির মাধ্যমে (https://jd.mi.com/) এই লিংকটিতে যাবেন। তারপর বারকোডটি স্ক্যান করবেন Mi Verification App দিয়ে। কিছুক্ষন অপেক্ষা করবেন । তারপর পিসিতে বা ল্যাপটপে দেখাবে ভ্যারিফিকেশন কনফারমেশন।

Authentication Label Method পদ্ধতি

এই পদ্ধতিতে প্রয়োগ করতে হলে আপনার ফোনের বক্সটি লাগবে। শাওমি ফোনের বক্সের পিছনে একটি সিকিউরিটি স্টিকার থাকে যেখানে ২০ ডিজিটের একটি সংখ্যা থাকবে।যা স্ক্যাচ করে উঠিয়ে ভেরিফিকেশনের এর কাজ সম্পন্ন করতে হবে।অনেক শাওমি ফোন সিকিউরিটি স্টিকার নাও থাকতে পারে।

সেক্ষেত্রে ফোনের IMEI এবং একটি সিরিয়েল নাম্বার দেয়া থাকবে যা (https://www.mi.com/verify/?lan=en#secur_en)। এই লিংক এ গিয়ে সহজেই অথেনটিকেশন চেক করতে পারবেন।

চেক The MIUI ROM ভার্সন

আপনি কখনো নকল ফোন অফিসিয়াল স্টক রম দিতে পারবেন না। কারণ আপনি যখন কোনো নকল ফোনে অফিসিয়াল স্টক রম দেয়ার চেষ্টা করবেন তখন সিস্টেম বিভিন্ন প্যারামিটার চেক করবে। এমতাবস্থায় সিম্পলভাবেই প্যারামিটার মিলবে না। যার ফলে আপনার ফোনটি ব্রিক বা ডেড হয়ে যাবে।

Comparism করা

এক্ষেত্রে আপনাকে নিজে নিজে চিনে নিতে হবে কোনটা আসল শাওমি ফোন। ব্যাপারটা  একটু জটিল। কারণ এর জন্য আপনার তীক্ষ্ণ কমন সেন্স থাকতে হবে। ফোনের বডি ,বিল্ড কোয়ালিটি এবং ফোনের ফিনিশিং দেখে আপনাকে আসল ফোন চিনে নিতে হবে। এক্ষেত্রে কোনো ফোন কিনতে যাওয়ার আগে আপনার আত্মীয়-স্বজন বা বন্ধু-বান্ধবদের ফোন দেখে যেতে পারেন।

ইউটিউব এর রিভিউগুলোও এক্ষেত্রে আপনার সহায়ক হতে পারে।

ফোনের সাথে দেয়া একসেসোরিজ

এক্ষেত্রে সবসময় শাওমি ফোনটির সাথে দেয়া একসেসোরিজগুলো মিলিয়ে দেখে চেক করে নিবেন। সাধারণত শাওমি ফোনের সাথে কোনো হেডফোন বা এয়ারফোন দেয়া হয় না। আর ফোনের সাথে যে চার্জার এবং ডাটা কেবল দেয়া থাকে সেটিও একটি প্লাষ্টিক দিয়ে মোড়ানো থাকে। আর লক্ষ্য করলে দেখা যাবে প্লাষ্টিক দুইটিতে পৃথক পৃথকভাবে বারকোডের স্টিকার লাগানো থাকে।

QR স্ক্যানার দিয়ে স্ক্যান করলেই আসল এবং নকল চেনা যাবে।

প্রাইজ তুলনা করা

এক্ষেত্রে আপনাকে বাজারে ফোনটির মূল্য জেনে নিতে হবে। কোথা থেকে জানবেন? সেই জন্য তো গুগল আছেই। গুগল এ সার্চ করে আগে ফোনটির চায়না রিটেল মূল্যটা জেনে নিন। তারপর সেই মূল্যটাকে টাকাতে কনভার্ট করুন। তারপর এমাউন্টের সাথে ক্যারিং খরচ+ ট্যাক্স + একটা যোক্তিক লাভ অ্যাড করুন।দেখুন টোটাল এমাউন্টটা কত আসে।

তারচেয়ে যদি কেও কমমূল্যে দিতে চাই আপনাকে একটি একই মডেলের নিউ শাওমি ফোন তবে ভেবে নিন সেটা নকল।

AnTuTu Offer Apps

এই পদ্ধতিতে প্রয়োগ করতে হলে আপনাকে গুগল প্লেস্টোর থেকে  AnTuTu Offer Apps টি ইনস্টল করে নিতে হবে। Mi Varification তারপর ২নং পদ্ধতির মতো খুব সহজে চেক করে নিতে পারবেন আপনার ফোনের অথেনটিকেশন টি।

এইতো হলো আসল শাওমি ফোন কিভাবে চিনবেন এর কিছু কার্যকরী পন্থা। হ্যাঁ বন্ধুরা আপনারা নির্সন্দেহে এই পদ্ধতিগুলো প্রয়োগ করতে পারেন। সবাই সুস্থ থাকুন ,ভালো থাকুন।আল্লাহ হাফেজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here